সাহিত্য পত্রিকা “শারদ শিউলি’র” মোড়ক উন্মোচন

নিজস্ব প্রতিনিধি:আজ রবিবার মহাজাতি সদনে অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো কবিতার কক্ষপথ সাহিত্য পত্রিকার প্রথম বর্ষ সংখ্যা “শারদ শিউলি’র” মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠান।মোড়ক উন্মোচন করেন বাংলা সাহিত্যের তথা ভারতীয় সাহিত্য সংস্কৃতির অন্যতম দিকপাল,ধারক ও বাহক,উজ্জ্বল নক্ষত্র বিশিষ্ট স্বনামধন্য কবি শ্রী জয় গোস্বামী।সাহিত্য সভায় উপস্থিত ছিলেন নব্বই এর দশকের জনপ্রিয় তরুণ কবি জয়দীপ রাউত, যিনি সাম্প্রতিক সময়ে চিত্র পরিচালক হিসেবেও বেশ খানিকটা খ্যাতি অর্জন করেছেন। এছাড়াও ছিলেন পত্রিকার সাধারণ সম্পাদক উজ্জ্বল চৌধুরী, সম্পাদিকা সুপর্ণা চক্রবর্তী, সভাপতি মৈত্রেয়ী চক্রবর্তী,সহ সভাপতি পঙ্কজ দত্ত এবং যুগ্ম সম্পাদক বিমান বিশ্বাস ও চিন্ময় বিশ্বাস এবং পরিচালক মন্ডলীর সদস্যবৃন্দ।

যাদের অগ্ৰণী ভূমিকা ছাড়া এই পথ চলা সম্ভব হতো না তারা হলেন অরিজিৎ ঘোষ,উৎপল নরেন্দ্র মাইতি,সুজিত চৌধুরী, সৌমিত্র আচার্য,স্বপ্না সোনালী দাসগুপ্ত,পম্পা পাঠক মুখার্জি, কাকলি বিশ্বাস, শতাব্দী চক্রবর্তী, হাবিবুর রহমান, জয়শ্রী সাহা এবং শুভেন্দু গাঙ্গুলী।

আরো যে সব সাহিত্য সাথীদের উৎকৃষ্ট লেখায় পত্রিকা সমৃদ্ধ হয়েছে তারা সকলেই অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে সাহিত্য অনুষ্ঠানকে সর্বাঙ্গীন সুন্দর করে তুলেছিলেন।সকল সাহিত্য সাথীদের শারদ সংখ্যা, সম্মাননাপত্র এবং স্মারক দিয়ে সম্মান জানানো হয়।

এছাড়াও পত্রিকার তরফ থেকে অনাথ শিশুদের বর্তমান ঠিকানা বেহালার হ্যাপি হোমের কর্ণধার শ্রী প্রদীপ সাহা মহাশয়ের হাতে সমাজের পিছিয়ে পড়া দুঃস্থ শিশুদের জন্য খাতা,পেন্সিল এবং কলম তুলে দেওয়া হয়।

কবি জয় গোস্বামী শুধু কবিতার জন্য এত মানুষের সমাবেশ দেখে আপ্লুত হয়ে পড়েন এবং বলেন এরকম আরো কিছু প্রয়াস হলে যোগ্য কবি ও কবিতার সম্মান জ্ঞাপনে আর কোন কার্পণ্য থাকবে না।

কবি ও পত্রিকার সাধারণ সম্পাদক উজ্জ্বল চৌধুরী বক্তব্য রাখতে গিয়ে আবেগ তাড়িত হয়ে পড়েন এবং বলেন এক বছরেরও কম সময়ে প্রায় তিন হাজার সদস্যের গ্রুপ হয়ে উঠবে কবিতার কক্ষপথ তা তিনি স্বপ্নেও ভাবতে পারেন নি আর এই সাফল্যের পুরো কৃতিত্ব তিনি সদস্যদেরই দেন।

অন্য দিকে সম্পাদিকা সুপর্ণা চক্রবর্তী ও সভাপতি মৈত্রেয়ী চক্রবর্তী বলেন যে, কবিতার কক্ষপথ সব কবিকে শুধু ভালো লেখা ও ভাল লেখা ভালো লাগা, ভালবাসার নিরিখে এক জায়গায় করেছে। এখানে অন্য কোন মানদন্ডের কোন ভূমিকা নেই। তাঁরা বলেন বহুদিন ধরে যে আদর্শ কবি কবিতার ও কাব্য প্রেমীদের গ্রুপের স্বপ্ন তারা দেখেছেন,কবিতার কক্ষপথের আধুনিক,তারতম্যহীন,প্রভাত ও পক্ষপাত মুক্ত পরিচালন পদ্ধতি তাঁদের সেই লক্ষ্যে উপনীত হতে সাহায্য করেছে।

শ্রদ্ধেয় কবির আশির্বাদকে পাথেয় করে কবিতার কক্ষপথ সাহিত্য পত্রিকার আগামীর পথচলা আরো সুদৃঢ় হবে এই বিশ্বাস রেখে সবাই কে আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়ে অনুষ্ঠান শেষ করেন সভাপতি মৈত্রেয়ী চক্রবর্তী এবং জানান আগামী জুন/জুলাই মাসে তারা তাদের নতুন পদক্ষেপের কথা এমনই কোনো অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে সব সদস্য ও উৎসুক কাব্য সমাজের কাছে পৌঁছে দেবেন।